অবশেষে বিদায় নিলো উইডোজের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভার্সন উইনডোজ ৭।মাইক্রোসফট অফিশিয়ালি জানিয়ে দিয়েছে, তারা উইডোস সেভেন কে সাপোর্ট দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে।এর ফলে ব্যবহারকারীরা অফিশিয়ালি কোনো আপডেট পাবেনা।পাশাপাশি থাকবে না কোনো সিকিউরিটি সিস্টেম।
উইনডোজ সেভেন
উইনডোজ সেভেন
তো এতোদিন ধরে যারা উইডোজের এই ভার্সনটি ব্যবহার করে আসছেন।তাদের ক্ষেএে এই সংবাদটি বেশ বেদনাদায়ক বটে।কেননা এতোদিন ধরে ব্যবহার করা এই ভার্সনটি আমাদের মনে বেশ শক্তপোক্ত জায়গা করে নিয়েছে।সিকিউরিটির ভয় থাকলেও অনেকেই অন্য ভার্সনে যেতে চাচ্ছে না ।আর এই মানুষগুলোই ফেসবুক গ্রুপগুলোতে প্রায় প্রশ্ন করছে,

  • আমি কি উইডোজ সেভেন ব্যবহার করতে পারবো না?
  • আমার কম্পিউটারে কি উইডোজ সেভেন বন্ধ হয়ে যাবে? ইত্যাদি।

তো গ্রুপগুলোতে অনেকেই অনেক রকমের উওর দিচ্ছেন।তার মধ্যে এমন কিছু উওর আসছে, যেগুলোতে পোষ্টকারীকে কনফিউশনে ফেলে দিচ্ছে।তাই ভাবলাম এই বিষয়টা নিয়ে একটা ছোট-খাটো পোষ্ট পাবলিশ করি।

এখন আমি কি উইডোজ সেভেন ব্যবহার করতে পারবো?

জ্বী, আপনি এখনও ব্যবহার করতে পারবেন।মাইক্রোসফট কোথায় বলেনি যে, আপনি ব্যবহার ই করতে পারবেন না।তারা বলেছে, ১৪ ডিসেম্বর ২০২০ থেকে উইডোজ সেভেনে সকল প্রকার অফিশিয়ালি সাপোর্ট বন্ধ করে দিবে।এবং আমরা যে হরহামেশা আপডেট পেতাম।সেটিও তারা অফিশিয়ালি বন্ধ করে দিবে।এজন্য আপনার কোনো সিকিউরিটি সিস্টেমে প্রবলেম হলে, তারা কোনোভাবে দায়ী থাকবে না।

আপনার কম্পিউটার/ল্যাপটপে যদি এখনও উইডোজের এই ভার্সনটি ইনষ্টল করা থাকে।তাহলে আপনি এখনও নিশ্চিতে ব্যবহার করতে পারবেন। এখনও সিডি কিংবা পেন ড্রাইভ দিয়ে নতুন করে ইনষ্টল করতে পারবেন।এতে কোনো প্রকার সমস্যা হবেনা।তবে ব্যবহারকালীন সময়ে কোনো সিকিউরিটি ইস্যু হলে, মাইক্রোসফট কোনাভাবে দায়ী থাকবে না।

উইনডোজ ৭ ব্যবহার করলে কি কি সমস্যা হতে পারে?

আসলে কোনো ধরনের সমস্যা হবে কিনা, সেটা সম্পূর্ন আপনার উপর নির্ভর করবে।যদি আপনি এখনও উইডোজের এই ভার্সনটি ব্যবহার করতে চান।তাহলে বেশ কিছু সমস্যা হতে পারে।যেমন,

  • কম্পিউটার হ্যাক হওয়া।
  • খুব সহজে ভাইরাস প্রবেশ করা।

যেহুতু মাইক্রোসফটের অফিশিয়ালি কোনো সাপোর্ট পাবেন না।সেহুতু বলা যায়, হ্যাকাররা খুব সহজেই আপনার ডিভাইসটিকে হ্যাক করতে পারবে।আবার আপনার ডিভাইসে খুব সহজেই ভাইরাস ঢুকতে পারবে।যার ফলে আপনার ডিভাইসে থাকা সকল তথ্যগুলো খুব সহজেই হ্যাকারের হাতে চলে যেতে পারে।

সমস্যা না হওয়ার জন্য কি কি করতে হবে?

আপনি এখনও নিশ্চিন্তে উইডোজ সেভেন ব্যবহার করতে পারবেন।এতে কোনো প্রকার সমস্যা হবে না।কিন্তু জটিল থেকে জটিলতর সমস্যা হবে তখন, যখন আপনি নিচে উল্লেখিত কাজগুলো করবেন।যেমন,

  • নেট কানেকশন চালু রাখা।
  • পেনড্রাইভ প্রবেশ করা।
  • অন্যান্য মিনি ডিভাইসে সংযোগ করা।

হ্যাকাররা মূলত সেইসব কম্পিউটারকে হ্যাক করতে পারে, যেগুলো ইন্টারনেট কানেকশনে যুক্ত আছে।কিন্তু আপনার পিসিতে/ল্যাপটপে যদি কোনা প্রকার ইন্টারনেট কানেকশন না থাকে।তাহলে হ্যাকারদের কোনা কিছু করার থাকবেনা।তাই আপনি যদি এখনও উইনডোজ সেভেন ব্যবহার করতে চান।তাহলে কোনোভাবেই নেট কানেকশন দিবেন না।কারন, সিকিউরিটি বিহীন একটি ডিভাইসকে হ্যাকাররা খুব সহজেই হ্যাক করে ফেলবে।

এছাড়াও আপনি যদি থার্ড পার্টি মিনি ডিভাইস যেমন, পেনড্রাইভ,কার্ডরিডার ইত্যাদি প্রবেশ করান।তাহলেও আপনার কম্পিউটার হ্যাক হয়ে যেতে পারে।ধরুন, আপনি আপনার পিসিতে একটি পেনড্রাইভ প্রবেশ করালেন।এখন যদি প্রবেশ করানো পেনড্রাইভে ভাইরাস থাকে।তাহলে তা অটোমেটিক ডিটেক্ট হবে না।যার ফলে সেই ভাইরাসগুলো অনেক দ্রুত আপনার ডিভাইসে জায়গা করে নিবে।

তো এই বিষয়টা আসলে নির্ভর করবে সম্পূর্ন আপনার উওর।আপনি যদি এই বিষয় গুলো মেনে চলতে পারেন।তাহলে উইনডোজ সেভেন এখনও আপনি নিশ্চিতে ব্যবহার করতে পারবেন।আর যদি আপনার মনে হয় যে, এতো সমস্যা সমাধান করতে পারবেন না।তাহলে উইনডোজ ১০ এ চলে যেতে পারেন।ধন্যবাদ