.breadcrumbs{display:none !important;}

কিভাবে মোবাইল দিয়ে এনিমেশন ভিডিও তৈরি করবেন

মোবাইল এনিমেশন ভিডিও

আপনি যদি ইন্টারনেটে সার্চ দেন, ”কিভাবে মোবাইল দিয়ে এনিমেশন ভিডিও তৈরি করা যায়”।তাহলে অনেক ইউটিউব ভিডিও এবং ওয়েবসাইট দেখতে পারবেন।যেখানে মোবাইল দিয়ে কার্টুন ভিডিও তৈরি করার বিভিন্ন টিপস দেওয়া হয়েছে। তবে সম স্যা হলো, সবাই ভিন্ন ভিন্ন কার্টুন/এনিমেশন তৈরি করার এপস সম্পর্কে বিস্তারিত বলেছেন।যার কারনে অনেকের বুঝতে সমস্যা হতে পারে যে, আসলে কোন এপসটি সবচেয়ে ভালো এবং কোনটি এপস দিয়ে মোবাইলের মাধ্যমেই খুব ভালো মানের এনিমেশন তৈরি করা যায়।

তবে আজকে আমি আপনাদের মাএ দুটি এপস কে পরিচয় করিয়ে দেবো।যে এপস দুটোর সাহায্য আপনি ইচ্ছে করলেই নিজের হাতে থাকা মোবাইল দিয়েই হাই কোয়ালিটি সম্পন্ন এনিমেশন তৈরি করতে পারবেন।আর যদি ফোনের কনফিগারেশন নিয়ে টেনশন করেন।তাহলে বলবো, টেনশনের কোনো কারন নেই।আপনার ফোনের র‌্যাম যদি ১ জিবি হয়।তাহলেও আপনি এই এপস দুটো খুব স্মুথলি ব্যবহার করতে পারবেন।
মোবাইল দিয়ে এনিমেশন ভিডিও
মোবাইল দিয়ে এনিমেশন ভিডিও

এনিমেশন ভিডিও তৈরি করে কি করবেন?

যদি আপনার মনেও এই প্রশ্নটি জেগে থাকে।তাহলে আমি এই প্রশ্নের দুটো উওর দিবো,
  • আপনার ভালোলাগার জন্য এবং 
  • অনলাইনে ইনকামের জন্য।
আমাদের মধ্যে অনেকের অনেকরকম শখ/ইচ্ছে থাকে।সেই ধারনা থেকে অনেকেই আছেন যারা নতুন কিছু করতে ভালোবাসেন।তো এমনটা কি হতে পারেনা যে, সেই মানুষটি এনিমেশন ভিডিও দেখতে খুব ভালোবাসে।সেই ভালোবাসা থেকে ইচ্ছে জাগলো যে, নিজের মোবাইল দিয়েই এনিমেশন ভিডিও তৈরি করবে।হুম এমন ইচ্ছা জাগা স্বাভাবিক।তবে যদি আপনি অনলাইনে ইনকাম করার জন্য এনিমেশন তৈরি করতে চান।তাহলে আপনাকে একটু বিস্তারিত জানতে হবে।

এনিমেশন ভিডিও অনলাইন ইনকাম

অনলাইন ইনকামের অনেকগুলো উপায় আছে।তবে তার মধ্যে এনিমেশনের জনপ্রিয়তা কোনো অংশ থেকে কম নয়।আমার পরিচিত এমন অনেকেই আছেন, যারা ২ডি এবং ৩ডি এনিমেশনের সাহায্য ফ্রিল্যান্সিং করেই হাজার হাজার ডলার ইনকাম করছে।

এর প্রধান কারন হলো, কার্টুন ভিডিও দেখতে ভালোবাসেনা এমন মানুষ বর্তমানে খুজে পাওয়া কষ্টকর।আর এরজন্যই হয়তবা বলা হয়, ৮ থেকে ৮০, আমরা সবাই কার্টুন দেখতে ভালোবাসি।আপনি এই জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে আপনিও অনলাইন থেকে বেশ ভালো পরিমানে ইনকাম করতে পারবেন।
তবে আপনি যদি মোবাইল দিয়ে এনিমেশন তৈরি করে ইনকাম করতে চান।তাহলে আপনার জন্য দুটি উপায় খোলা আছে,
  • ইউটিউবিং 
  • ফেসবুকিং
যদি আপনি মোবাইল থেকেই ইনকাম করতে চান।তাহলে আপনার জন্য ইউটিউব চ্যানেল এবং ফেসবুক পেজেই যথেষ্ট।কারন এ দুটো প্ল্যাটফর্ম অনলাইন ইনকাম বা আউটসোর্সিং করার প্রথম ধাপ।আর আমাদের পরিচিত অনেকেই এই দুটো প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে নিজের সফল ক্যারিয়ার গড়তে পেরেছে।

এনিমেশন ভিডিও তৈরি

যদি আপনি এনিমেশন ভিডিও তৈরি করতে চান।তাহলে আপনাকে প্রথমত এনিমেশন তৈরির এপস সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝতে হবে।চেষ্টা করতে হবে এই এপসগুলো দিয়ে কিভাবে হাই কোয়ালিটি এনিমেশন তৈরি করা যায়।নিজে নিজেই গল্প লিখতে হবে।সেই গল্পের সাথে মিলিয়ে আপনাকে এনিমেশনের ক্যারেক্টার/ব্যাকগ্রাউন্ড তৈরি করে নিতে হবে।তাহলে আপনার তৈরি করা ভিডিওগুলো মানুষ দেখে মজা পাবে।আর আপনার ভিডিও দেখতে আগ্রহ প্রকাশ করবে।

এনিমেশন তৈরি সফটওয়্যার

কম্পিউটার দিয়ে এনিমেশন তৈরি করার জন্য অনেক সফটওয়্যার পাবেন।তবে সেই সফটওয়্যারগুলো ব্যবহার করার জন্য আপনার কম্পিউটারের কনফিগারেশনও খুব হাই কোয়ালিটির হতে হবে।কিন্তু মোবাইল দিয়ে এনিমেশন তৈরি করার সময় এসব নিয়ে তেমন ভাবতে হবে না।আপনি চাইলে ১ জিবি র‌্যাম দিয়েও এই এপসগুলো খুব স্মুথলি ব্যবহার করতে পারবেন।

অনলাইনে কার্টুন এনিমেশন তৈরির জন্য অনেক এপস পাবেন।তবে আমি আজকে প্রোফেশনাল দুটি এপসের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো।কারন এর আগে আমি আরও একটি আর্টিকেল পাবলিশ করেছি।আপনি চাইলে সেই আর্টিকেলটি পড়ে দেখতে পারেন।

প্লোটাগন: মোবাইল দিয়ে প্রফেশনাল এনিমেশন করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি এন্ড্রয়েড এপস হলো, প্লোটাগন।আর গুগল প্লে স্টোরে এই এপসটির রেটিং পয়েন্ট অনেক হাই।সবচেয়ে বড় কথা হলো, আপনার ফোনটি যদি লো কনফিগারেশন হয়ে থাকে।তাহলেও এই এপসটির সাহায্য অনেক ভালো মানের এনিমেশন তৈরি করতে পারবেন।তাই প্লোটাগন কোম্পানি তাদের এপসটিকে আরও একটু ডেভলপ করে দুটি ভার্সনে ভাগ করেছে।
  • প্লোটাগন ইডুকেশন
  • প্লোটাগন স্টোরি
গুগল প্লে স্টোরে থাকা এই দুটি ভার্সন অসংখ্য বাড় ডাউনলোড করা হয়েছে।কারন এই এপসটিতে বিশেষ কিছু সুবিধা আছে।যা আপনি চাইলেও অন্য এপসগুলোতে পাবেন না।প্লোটাগন এর উক্ত দুটি এপসের যে কোনো একটি ব্যবহার করতে পারবেন।তবে দুটো এপস যেহুতু একটি কোম্পানির।তাই এই দুটো এপসের মধ্যে পার্থক্য কি।সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

প্লোটাগন স্টোরি (Plotagon Story)
মোবাইল দিয়ে এনিমেশন
মোবাইল দিয়ে এনিমেশন

আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী ক্যারেক্টার,ব্যাকগ্রাউন্ট,রিংগিং করার অপশন পাবেন।আর এই এপসটি সবার জন্য উন্মুক্ত।তাই বাড়তি কোনো ঝামেলা পোহাতে হবে না আপনাকে।নিজের রুচি অনুযায়ী সহজেই এনিমেশ তৈরি করে সেই ভিডিওগুলো খুব দ্রæত শেয়ার করতে পারবেন।
ফিচার্ড:
  • নিজের মতো করে এনিমেশন ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।
  • আপনার কিংবা কোনো সেলিব্রেটির সাথে হুবুহু মিল রেখে ভিডিও বানাতে পারবেন।
  • মিউজিক বা ভয়েজ এড করার সুবিধা আছে।
  • মুগ্ধ করার মতো সাউন্ড ইফেক্ট পাবেন এই এপসে।
                                                                          Download 

যদি আপনি নিজের ঘরে বসেই মোবাইল দিয়ে ভিডিও বানাতে চান।তাহলে প্লোটাগন স্টোরি আপনার জন্য উপযুক্ত হবে।

প্লোটগন ইডুকেশ (Plotagon Education):
মোবাইল এনিমেশন ভিডিও
মোবাইল এনিমেশন ভিডিও

যদি আপনি শিখতে চান যে, কিভাবে মোবইল দিয়ে এনিমেশন তৈরি করা যায়”।তাহলে আপনার জন্য প্লোটাগন ইডুকেশন যথেষ্ট।কারন এই এই এপসটির ইন্টারফেস খুব সাদামাঠা।যে কোনো অপশন খুব সহজেই বুঝতে পারবেন।আর বাকিটা যে ফিচার্ড আছে।সেগুলো প্লোটোগন স্টোরির মতোই।

বি: দ্র: প্লোটাগন ইডুকেশন এপটিতে বেশ কিছু বাগ রয়েছে।অনেকসময় খুব Slow কাজ করে।আবার এই এপসটি নিজে থেকেই হ্যাং হয়ে যায়।


মেক অফ জোক: একবারে সম্পূর্ন ফ্রিতে এনিমেশন তৈরি করার জন্য মেক অফ জোক বেষ্ট।এবং আপনার তৈরি করা ভিডিওগুলো ইউটিউব কিংবা ফেসবুকে খুব সহজেই শেয়ার করতে পারবেন।
ফিচার্ড:
  • নিজের পছন্দমতো ক্যারেক্টার ক্রিয়েট করতে পারবেন।
  • অনেক মানসম্মত লোকেশন পাবেন।
  • ইচ্ছামতো কাস্টমাইজে
  • ভিডিও রেকর্ড করা
  • অডিও/মিউজিক এড করা
  • ক্যারেক্টারের অনেকগুলো রিয়্যাকশ যেমন, হাসি কান্না,নরমাল
  • সোশ্যাল সাইটে শেয়ার করার সুবিধা
                                                             Download  

Make Joke Of Creator:

প্লোটাগনের মতো মেক অফ জোক এপটিও অনেক জনপ্রিয়।কারন, মেক অফ জোক এপসের কোম্পানি প্রতিনিয়ত আপডেট দেয়।তাই আপনিও পাবেন নতুন নতুন ফিচার্ড।যা আপনার প্রোফেশনাল এনিমেশন তৈরি করতে যথেস্ট ভুমিকা রাখবে।
                                                              Download 

বি: দ্র: উক্ত এপসগুলোর অনেক ফিচার্ড পেইড সিস্টেম চালু আছে।তবে আপনার যদি মোড ভার্সন ডাউনলোড করতে চান।তাহলে আমার ফেসবুক পেজে যোগাযোগ করবেন।

কিছু কথা: আমাদের মধ্যে অনেকেই ভাবে যে, মোবাইল দিয়ে এনিমেশন তৈরি করা অসম্ভব।কিন্তু আপনি যদি মোবাইল থেকেই নিখুতভাবে এনিমেশন তৈরি করেন।তাহলে মোবাইল দিয়ে এনিমেশন তৈরি সম্ভব।










Older Post

Thanks For Read the Article