.breadcrumbs{display:none !important;}

ICC 2019 বাংলাদেশ কত টাকা ইনকাম করলো? toto bangla

ICC World Cup 2019

icc world cup @2019 অনেক নাটকীয়তার জন্ম দিয়ে ক্রিকেট ইতিহাসে জায়গা করে নিয়েছে, ২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল।এমন রোমঞ্চকর আর শ্বাসরুদ্ধকর ফাইনাল এর আগে কখনও দেখেনি ক্রিকেটবিশ্ব।তাই এই আসরটি টাকার অঙ্ক দিয়েও ছাপিয়ে গেছে ক্রিকেটের অন্য আসরগুলোর থেকে।
ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে চলতি বিশ্বকাপেই দেয়া হয়েছে অনেক বড় অঙ্কের অর্থ।এই টুর্নামেন্টের বাজেট ছিলো ১০ মিলিয়ন ডলার।আর চ্যাম্পিয়ান দল ইংল্যান্ড দল পেয়েছে ৪ মিলিয়ন ডলার।যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৩৪ কোটি টাকা।
icc world cup
icc world cup 2019 
পাশাপাশি রানার্সআপ হওয়া নিউজিল্যান্ড দল পেয়েছে ২ মিলিয়ন ডলার।যা বাংলাদেশি টাকায় ১৭ কোটি টাকা।অপরদিকে পুরো টুর্নামেন্টে ফাল পারফরম্যান্স থাকার পরও সেমিফাইনালে বিদায় নিতে হয়েছিলো ভারতকে।বিশ্বকাপের সেমিতে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছিলো তারা।
তবে ভারত বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলেও এবারের বিশ্বকাপ থেকে ভারতের ইনকাম কিন্তু মোটেও কম ছিলো না।এবারের বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে ওঠার জন্য ভারত পেয়েছে ৮ লাখ ডলার।
ভারত বিশ্বকাপে ম্যাচ জিতেছে মোট ৭ টি।আর এর অর্থ দাড়ায় যে, ভারত ৭ ম্যাচের জন্য ভারত আরও কিছু বাড়তি টাকা পেয়েছে।সেই বাড়তি টাকার পরিমান হলো, ২ লাখ ৮০ হাজার ডলার।১ ম্যাচ জিতলে মূলত একটি দল ৪০ হাজার ডলার পেয়ে থাকে।

এছাড়াও ভারতের একটি ম্যাচ পরিত্যাক্ত হয়েছিলো।সেই ম্যাচ থেকেও তারা পেয়েছে আরও ২০ হাজার ডলার।কারন সেই পরিত্যাক্ত ম্যাচের টাকা দুই দলের মধ্যে ভাগাভাগি হয়ে গেছে।আর এসব মিলিয়ে ভারত এবারের বিশ্বকাপ থেকে পেয়েছে ৩ লাখ ডলার।আর সবকিছু মিলিয়ে ভারতের এবারের বিশ্বকাপ থেকে আয় হলো ১১ লাখ ডলার।যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৯ কোটি ৩০ লক্ষ টাকা।
অপরদিকে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন আশানুরুপ হয়নি।বাংলাদেশের শুরুটা জয় দিয়ে হলেও, শেষটা হয়েছে পাকিস্তানের সঙ্গে হার দিয়ে। পয়েন্ট টেবিলের শেষ ৪ এ ইংল্যান্ড গেলেও।বাংলাদেশের বিশ্বকাপ শেষ হয়েছে ৮ নম্বর থেকেই।
ICC র নিয়ম অনুযায়ী গ্রপ পর্বের প্রত্যেক ম্যাচে জয়ী হওয়া দলগুলো পাবে ৪০ হাজার ডলার।এছাড়াও গ্রপ পর্ব থেকে বাদ পড়া দলগুলোর জন্য আইসিসি বরাদ্দ রেখেছিলো ১ লাখ ডলার।
বাংলাদেশ এই বিশ্বকাপে ৩ টি ম্যাচ জিতলেও খালি হাতে ফেরেনি।চলতি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ সব মিলিয়ে পেয়েছে ২ লাখ ৪৪ হাজার ডলার।যা বাংলাদেশি টাকায় ২ কোটি ২৭ লাখ টাকা।
সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়া দুইটি দলকেও কিন্তু হতাশ করেনি ICC।তাদের জন্যও বরাদ্দ করেছিলো বেশ বড় অঙ্কের টাকা।সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়া অষ্ট্রেলিয়া ভারতের মতোই আয় করতে পেরেছে।অষ্ট্রেলিয়া এবারের বিশ্বকাপে পেয়েছে ৮ লাখ ডলার ।
গত ৩০ মে শুরু হয়েছিলো বিশ্বকাপ।গত ১৪ জুলাই ইংল্যান্ডের চ্যাম্পিয়ান হওয়ার মধ্যে দিয়ে শেষ হয় এবারের বিশ্বকাপ আসর।এবারের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ান নির্ধারন করতে সুপার অভারে টাই পদ্ধতির মাধ্যমে ট্রফি গেলো ইংল্যান্ডের হাতে।সুপার অভারে বেশি বাউন্ডারি মারার কারনে, শেষ পর্যন্ত ট্রফি উঠে ইংল্যান্ডের হাতে।
এই সুপার অভারে ইংল্যান্ডের সমান রান করেও জিততে পারেনি শিরোপার মুকুট।এ বিশ্বকাপের ফাইনালে সুপার অভার সহো সম্পূর্ন ম্যাচে ইংল্যান্ডদের মোট ৪ ও ৬ ছিলো মোট ২৬ টি।অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের ছিলো ১৭ টি।আর নিউজিল্যান্ড এখানেই হেরে গেছে।
তবে সবশেষে একটি কথা বলবো।বাংলাদেশ অন্যান্য বিশ্বকাপের তুলনায় অনেক ভালো করেছে।আশা করি আগামী বিশ্বকাপ আসরে এর থেকেও ভালো খেলে দেশকে অনেক মুগ্ধকর ম্যাচ উপহার দিবে।

New Post Older Post

Thanks For Read the Article