.breadcrumbs{display:none !important;}

facebook update I ID Disable সমস্যার সমাধান করুন-টোটোবাংলা

Facebook Update-ID Disable Problem Solve

আমরা সবাই জানি ফেসবুক তাদের প্ল্যাটফর্মকে প্রতিনিয়ত Update করে।কোটি কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে।ফেসবুক কমিউনিটি তাদের আপডেটের চেষ্টা অনাবরত চালিয়ে যাচ্ছে।আর তার ফলে আমরাও পাচ্ছি নিত্য-নতুন আপডেটের সুফল এবং ব্যবহারের সুবিধা।কিন্তু ফেসবুকের এই আপডেট সবার জন্য যে সুফল বয়ে আনছে, তা কিন্তু নয়।অনেকক্ষেএে কিছু কিছু মানুষের জন্য ফেসবুকের এই আপডেটগুলো বেদনারও বটে
ফেসবুক চালাতে চালাতে কিংবা ফেসবুক থেকে বের হয়ে। কিছুক্ষন পর আবার ফেসবুকে ঢোকার সময় যদি দেখেন আপনার ফেসবুক আইডিটি ডিজেবল/ব্লক হয়ে গেছে।কিংবা কোনো এক ভেরিফিকেশনে পড়ে গেছে।বছরের পর বছর ব্যবহার করা ফেসবুক আইডিটা ফিরে পাওয়ার নিশ্চয়তা যখন ৫০% হারিয়ে যায়।তখন মনের অবস্থাটা কেমন হয়।সেটা একমাএ সেই বলতে পারবে, যার ফেসবুক আইডিটা ডিজেবল হয়ে গেছিলো।
জ্বী! তবে এবারের ফেসবুকের আপডেটে তেমনি একটা বড় ঝড় চলছে আইডি ব্লক/ডিজেবলের।ইতিমধ্যেই ফেসবুক তাদের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।যার কারনে হাজার হাজার ফেসবুক আইডি ব্লক হয়েছে।এবং এই আইডি ব্লকের কার্যক্রম চলবে আগামী ৬০ দিন পর্যন্ত। বর্তমানে ফেসবুক খুললেই চোখে পড়ে “আইডি ডিজেবল হয়েছে, কিভাবে ঠিক করবো” এই টাইপের পোষ্টগুলো।

তবে আপনি চাইলে এই সমস্যাগুলো থেকে মুক্তি পেতে পারেন।তার জন্য ছোট্ট ছোট্ট কিছু কাজ করতে হবে আপনাকে।আপনি যদি সেই কাজগুলো করেন।তাহলে আর হারিয়ে যাবে না ফেসুবকের চিরচেনা সেই পুরাতন বন্ধুগুলো।পাশাপাশি আইডি ডিজেবল হওয়ার ভয়ও থাকবে না। 
তো চলুন শুরুতে জেনে নেয়া যাক, কি কি কারনে আপনার শখের ফেসবুক আইডিগুলো ডিজেবল/ব্লক করে দিচ্ছে ফেসবুক?
facebook update picture
facebook update id disable

Why Is My Facebook Account Locked or Disabled?

ফেইক নেম (Fake Name): আমাদের অনেকের আইডিগুলোতে কেউ রিয়েল নাম ব্যবহার করিনা।সবাই ভিন্ন ভিন্ন নাম বা এস্টাইলিশ নাম ব্যবহার করি।যদি কারও নাম হয় জরিনা, তাহলে ফেসবুকে তার নাম দেয় “কেয়ারলেস কুইন জরিনা”।আবার তো অনেকে নিজের নামটাকে বিভিন্ন স্টাইলে দিয়ে দেয়।কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো, ফেসবুক কখনই এই টাইপের নামগুলোকে সমর্থন করে না।ফেসবুক বরাবরের মতো বলে আসছে, নিজের রিয়েল নামগুলো ব্যবহার করতে।
আর যেসকল মহান ব্যক্তিরা ফেসবুকে রিয়েল নাম না দিয়ে ভুল-ভাল নাম ব্যবহার করেছেন।সেই সকল ব্যক্তিদের আইডিগুলো ফেসবুক সম্মানের সহিত ব্লক/ডিজেবল করে দিচ্ছে।

এক ব্যক্তির একাধিক আইডি: বছরের পর বছর ফেসবুক চালায়।কিন্তু শুধুমাএ একটা আইডি ব্যবহার করেন।এমন মানুষ কি বর্তমানে খুজে পাবেন-পাবেন না,তাইতো?
আমরা যারাই কমবেশি ফেসবুক ব্যবহার করি।তাদের প্রত্যেকেরি এক বা একাধিক ফেসবুকে একাউন্ট আছে।বাংলাদেশের ফেসবুক আইডির আদমশুমারি ২০১৪ অনুযায়ী, বাংলাদেশে মোট ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিলো ৩ কোটির মতো। কিন্তু খুশির সংবাদ হলো, এই ত কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারী আইডির সংখ্যা ছিলো মোট ৯ কোটি! 
কি অবাক হয়ে গেলেন?- অবাক হওয়ার মতো কিছু নেই।কারন ফেসবুক ইতিমধ্যেই তাদের আইডি দমনের কাজ শুরু করে দিয়েছে।কিছুদিন আগে তারা জানিয়েছিলো, যে আইডিগুলো তিন মাস বা তার অধিক সময় ধরে ব্যবহার করা হয় না।সেই আইডিগুলোকে তারা ফেসবুক থেকে চিরতরে সরিয়ে দিবে।
সেই আইডি সরানোর অসম্পূর্ন কাজগুলোকে সম্পূর্ন করার জন্য আবার তারা ফেসবুক ফেইক আইডি নিধনে নেমে পড়েছে।যদি আপনিও এই অধিক আইডি ব্যবহারকারী কিংবা ফেইক আইডি ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন।তাহলে আপনিও পড়তে পারেন ডিজেবল/ব্লকের কবলে।



এক ডিভাইসে অধিক আইডি ব্যবহার: উপরের পয়েন্টটি পড়ার পড় হয়তবা আপনি ভাবতে পারেন।আপনি ১ আইডি ব্যবহার করেন আর ১০০০ টা আইডি ব্যবহার করেন।সেটা ফেসবুক টের পাবে কিভাবে? তারা তো আপনার মোবাইল/কম্পিউটারে এসে দেখছে না।
যদি এমনটা ভাবেন,তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন।কারন ফেসবুকে আপনি যেদিন থেকে য্ক্তু হয়েছেন।সেদিন থেকেই আপনি ফেসবুকের মনিটরিংয়ে পড়ে গেছেন।আপনি একজন ফেসবুক ইউজার হওয়ায়।আপনার আইডি এবং ডিভাইজগুলো মনিটরিং করা তো তাদের দায়িত্ব।
আর তাদের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে যখন দেখবে, আপনি একটি মোবাইল/কম্পিউটারে এক বা একাধিক ফেসবুক আইডি ব্যবহার করছেন।তাহলে আপনার আইডিগুলো ব্লক/ডিজেবলের কবলে পড়তে পারে।

অশ্লীলতা/হুমকি: আপনার মাথা কি সবসময় গরম থাকে।একটুতেই রেগে গিয়ে যাকে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন।তাহলে আপনার জন্য এই পয়েন্টটি বেশ বেদনাদায়ক।কারন ফেসবুক অশ্লীলতাকে একদমই প্রশ্রয় দেয়না।পাশাপাশি যদি আপনার মেসেজে অশ্লীল পিক, হুমকিস্বরুপ কোনো কমেন্ট বা মেসেজ করার অভ্যাস থেকে থাকে।তাহলে আজ থেকেই সেসব বাদ দিন।না হলে আপনার শখের আইডিটাও ব্লক করে দিতে পারে ফেসবুক কমিউনিটি।

এতক্ষনে কেন আপনার ফেসবুক আইডিগুলো ব্লক/ডিজেবল হবে।সেই বিষয়টা বয়ান করলাম।এবার তাহলে জেনে নেয়া যাক কিভাবে আপনি আপনার ফেসবুক আইডিকে ব্লক হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে পারবেন

How to Protect My Facebook ID 

  • ফেসবুকে রিয়েল নাম ব্যবহার করুন।আপনার এনআইডি কার্ডের নাম ও জন্মতারিখ আছে।ফেসবুক আইডির নাম ও জন্মতারিখের মিল রাখুন।যেন আপনার ফেসবুক আইডিটা ব্লক হলেও পরে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সাহায্য ফিরিয়ে আনতে পারেন।
  • এক ডিভাইসে একের অধিক ফেসবুক আইডি ব্যবহার করবেন না। পারলে এক্ষুনি আপনার প্রয়োজনীয় আইডিটা ছাড়া।বাকি আইডিগুলো আপনার ডিভাইস থেকে রিমুভ করে দিন।
  •  ফেসবুক বর্তমানে আপনার আইডেন্টি ভেরিফাই করার জন্য অপশন চালু করেছে।তাই আপনি সময় থাকতে আপনার এনআইডি দিয়ে ভেরিফাই করে নিতে পারেন।
  • আইডির সুরক্ষার জন্য টু-ষ্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করে রাখুন
  • ফেসবুকে কোনো প্রকার অশ্লীল মেসেজ, ১৮+ পোস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।পাশাপাশি ফেসবুকে মেসেজে,পোষ্টে কিংবা কমেন্টে কাউকে গালি-গালাজ,হুমকি,প্রলোভন দেখাবেন না।
উক্ত বিষয়গুলো মেনে চললে আপনার ফেসবুক আইডির সুরক্ষিত থাকবে।আর আপনিও নিশ্চিন্তে ফেসবুক ব্যবহার করতে পারবেন। হ্যাপি ফেসবুকিং।
New Post Older Post

Thanks For Read the Article