.breadcrumbs{display:none !important;}

গরমে ফোনের যত্ন How to protect phone from hot weather

গরমে ফোনের যত্ন How to protect phone from hot weather

হ্যালো বন্ধুরা, টোটোবাংলার পক্ষ থেকে স্বাগতম। আমার পোষ্টের টাইটেল দেখে হয়তবা আপনি বেশ অবাক হয়েছেন। “গরমে ফোনের যত্ন”  কিন্তুু কিভাবে?  আমরা হয়তবা গরমে স্বাস্থ্যর যত্ন নিতে পারি, ত্বকের যত্ন নিতে পারি।কিন্তু কিভাবে আমরা এই গরমে ফোনের যত্ন নিতে পারি?

আসলে বর্তমানে বাংলাদেশে যে পরিমানে গরম পড়েছে।এতে কিন্তু আপনাকে আপনার ফোনের দিকে একটু হলেও খেয়াল রাখতে হবে। তো চলুন জেনে নেয়া যাক কিভাবে আপনি আপনার ফোনকে যত্ন নিবেন।
 How to protect phone from hot weather
 How to protect phone from hot weather


আগে যখন আমরা বাটন ফোনগুলো ব্যবহার করতাম।তখন কিন্তু আমাদের এতোটা টেনশন করতে হতো না, যতোটা আমরা আমাদের স্মার্টফোনগুলোকে নিয়ে করি।আর স্মার্টফোনের যত্ন নিতে হলে সর্বপ্রথম আমাদের যে বিষয়টি মাথায় আসে তা হলো, স্মার্টফোনের ব্যাটারি। এই গরমে ফোনের ব্যাটারি কিন্তু আপনার স্মার্টফোনের উপর প্রভাব ফেলতে পারে।ভাবছেন কিভাবে প্রভাব ফেলবে? 

ধরুন আপনি আপনার ফোনটি চার্জে দিয়ে ব্যবহার করছেন।পাশাপাশি বর্তমান পরিবেশটিও অনেক গরম।তখন আপনি একটা জিনিস খেয়াল করবেন, অন্য সময় আপনার ফোনটি চার্জে লাগিয়ে ব্যবহার করলে যে পরিমান গরম হতো।তার চেয়ে বর্তমানে অনেক বেশি গরম হচ্ছে। অবশ্য আমি এর আগেও কয়েকটি পোষ্টে উল্লেখ করেছি যে, ফোন চার্জে লাগিয়ে ব্যবহার করলেও ফোনের কোনো প্রকার ক্ষতি হয়না।তবে এ বিষয়টি আপনার মাথায় রাখতে হবে যে, আপনার ফোনটির ক্ষতি হবে তখন, যখন আপনার ফোনের ব্যাটারিটি অধিক মাএায় গরম হবে।আর বর্তমান সময়ে যদি আপনার ফোনটি চার্জে লাগিয়ে ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার ফোনটি আরও দ্বিগুন গরম হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে।আর এই বিষয়টি কিন্তু আপনি প্রাথমিক ব্যবহারেই বুঝে যাবেন।তাই আমি আপনাকে বলবো, এই গরমে কখনই আপনার ফোনটি চার্জে লাগিয়ে ব্যবহার করবেন না।

দ্বিতীয় কারন হলো, ডাটা কানেকশন

আমরা অনেক সময় আমাদের ফোনের ডাটা কানেকশন সবসময় চালু করে রাখি।মনে রাখবেন আমাদের ফোনে কিন্তু প্রসেসর সংযুক্ত করা আছে।আর যদি ডাটা কানেকশন চালু করে রাখি। তাহলে কিন্তু আমাদের ফোনটি গরম হওয়াটাই স্বাভাবিক।এছাড়াও আমরা যখন কোনো অনলাইন গেম খেলি, তখন সাধারনভাবে আমাদের ফোনগুলো অনেক বেশি পরিমানে গরম হয়।আর যদি সেই সময়ে আমাদের কোনো ফোন আসে, তাহলে সাথে সাথে সেই কল রিসিভ করে কথা না বলাই ভালো।আর যদি সাথে সাথে ফোনটি রিসিভ করে কানে লাগান। তাহলে আপনি তখনই টের পাবেন আপনার ফোনটি কি পরিমান গরম হয়েছে। তো সবসময় এই বিষয়টি মেনে চলার চেষ্টা করবেন।

এরপর তৃতীয় সাজেশন হলো, আপনার ডাটা প্যাকেজ।

যদিও এই ব্যাপারটি আপনার ফোন গরমের ক্ষেএে তেমন একটা গুরুত্বপূর্ন নয়।তবুও এই বিষয়টি খেয়াল রাখাটা ভালো। আপনি আপনার ফোনের মধ্যে সেই সিমটি ব্যবহার করুন, যেই সিমটির নেটওয়ার্ক আপনার এলাকায় সবচেয়ে বেশি ভালো পায়।আপনি হয়তবা লক্ষ্য করবেন, আপনার ফোনে রবি কিংবা টেলিটক সিম ব্যবহার করলে আপনার ফোনটি যে পরিমান গরম হচ্ছে।অপরদিকে গ্রামীনফোন সিম ব্যবহার করলে তার চেয়ে কম গরম হচ্ছে।এর প্রধান কারন হলো, আপনার ফোনকে নেটওয়ার্ক কাভারেজ দিতে তেমন কোনো চাপ নিতে হচ্ছে না।তাই বরাবর চেষ্টা করবেন সেই সিমটি ব্যবহার করার। যে সিমে আপনার এলাকায় নেটওয়ার্ক ভালো পায়।আর আপনার এলাকায় কোন সিমের নেটওয়ার্ক ভালো পায়, সেটা আমার থেকে আপনিই ভালো বুঝবেন।আর যাদের ফোনে সিঙ্গেল সিম।তাদের ক্ষেএে এই বিষয়টি না ভাবলেও চলবে।

তারপর আপনাকে একটি বিষয় খেয়াল করতে হবে। সেটা হলো, আমরা অনেক সময় ঘুমানোর আগে কিংবা পরে আমাদের মোবাইলটি বালিশের তলায় রেখে দেই।যদি আপনিও এই কাজটি করে থাকেন তাহলে আজই এই কাজটি করা বাদ দিন।কারন বর্তমানে যে পরিমান গরম পড়ছে।আপনার ফোন বালিশের তলায় রাখার কারনে কিন্তু আপনার সাধের ফোনের উপর প্রভাব পড়তে পারে।আমাদের ফোনে তো প্রসেসর আছে, তাহলে স্মার্টফোন গরম হওয়ার সম্ভাবনা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে।তার মানে এই নয় যে, স্মার্টফোন গরম হওয়া মানেই খারাপ।কিন্তু অতিরিক্ত গরম হলে সেটি আপনার ফোনের জন্য ক্ষতিকর।

সর্বশেষ যে বিষয়টি বলবো তা হলো, আপনার ফোনের কভার

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন, যারা তাদের নিজের ফোনে অনেক অনেক বড় বড় কভার ব্যবহার করেন।যার কারনে আপনার ফোনের তাপমাএা আর বাইরে যেতে পারে না।তো এইক্ষেএে ছোট একটা ট্রিকস মেনে চলতে হবে।যখন আপনার বাসাতে বিদ্যুৎ থাকবে না কিংবা যখন ফোনে কোনো অনলাইন গেম খেলবেন।তখন আপনি আপনার ফোনের কভারটি খুলে রাখবেন।এছাড়াও যখন আপনি আপনার ফোনটিকে চার্জে লাগাবেন।তখন আপনার ফোনটি গরম হবে এটা স্বাভাবিক।তো চার্জে লাগানোর সময় আপনার ফোনের কভারটি খুলে রাখার চেষ্টা করবেন।

তো সবশেষে একটি কথা বলবো, ফোন গরম হওয়া মানেই খারাপ কিছু নয়।তবে আপনার ফোন যদি অধিক মাএায় গরম হয়।তাহলে সেটা কিন্তু আপনার ফোন আর ফোনের ব্যাটারির উপর প্রভাব ফেলবে।তো আজকের পর্ব এখানেই শেষ।দেখা হবে পরবর্তী পোষ্টে।আজকের পোষ্টের বিষয়ে কিছু বলতে চাইলে কমেন্ট করতে পারেন।ধন্যবাদ।



New Post Older Post

Thanks For Read the Article