.breadcrumbs{display:none !important;}

ভিপিএন কি ? ভিপিএন কোন কাজে ব্যবহার করা হয়?

           ভিপিএন কি ? ভিপিএন কোন কাজে ব্যবহার করা হয়? 

ভিপিএন আপনাকে কিভাবে সাহায্য করে ?
ভিপিএন কি

সাধারনভাবে ভিপিএনের সম্পূর্ণ অর্থ হলো,ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক।ভিপিএন মূলত আপনার সাথে কানেক্ট থাকা ইন্টারনেট  কানেকশনকে অন্য একটি ভার্চুয়াল নেটওয়ার্কের সাথে সিকিউর করে থাকে। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা, নির্দিষ্ট আঞ্চলে ব্লক থাকা ওয়েবসাইটগুলোতে প্রবেশ করা,তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য গোপন রাখতে এবং নিজের লোকশন যেন কেউ খুজে না পায় সেজন্য ভিপিএন ব্যবহার করে থাকে।
বর্তমানে ভিপিএনের ব্যবহার অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।কিন্তু আমরা যে কারনে এই ভিপিএনকে ব্যবহার করছি।ঠিক সেই কাজের জন্য কিন্তু ভিপিএন তৈরি করা হয়নি। ভিপিএন তৈরি করা হয়েছিলো মূলত কিছু বাণিজ্যিক প্রাইভেট নেটওয়ার্ককে নিরাপওা দেয়ার জন্য।ভিপিএন আপনার কানেক্ট থাকা নেটওয়ার্ককে অন্য একটি নেটওয়ার্কের সাথে ফরওয়ার্ড করে থাকে। আমাদের ব্যবহৃত প্রায় সব ডিভাইসগুলোতে বিল্ট ইন ভিপিএন সাপোর্টেট হয়ে থাকে।

              ভিপিএন আপনাকে কিভাবে সাহায্য করে ? 

আপনি হয়তবা ’সুরঙ্গ পথের’ নাম শুনে থাকবেন। সুরঙ্গপথ হলো গোপন পথ কিন্তু এই পথেও আপনি আপনার গন্তব্যস্থলে যেতে পারবেন।ঠিক সেভাবেই ভিপিএনও কাজ করে থাকে। আপনি যখন আপনার ডিভাইসকে ভিপিএনের সাথে কানেক্ট করবেন।তখন আপনার ইন্টারনেট কানেকশনকে অন্য একটি সার্ভারের সাথে সংযুক্ত করবে।এই অন্য সার্ভারের সাথে কানেক্ট হওয়ায় ভার্চুয়াল জগতে আপনার একটি গোপন সুরঙ্গ পথ তৈরি হবে। মজার বিষয় হলো আপনার কানেকশন প্রভাইডার আপনার এই ভিপিএন কতৃক এই সুরঙ্গপথের উপস্থিতি বুঝতে পারলেও আপনার সার্ভারে প্রবেশ করতে পারবে না। পাশাপাশি আপনাকে খুজতে পারবে না যে আপনি কোন আইপির সাথে কানেক্ট আছেন। যার ফলে আপনি কোন কোন ওয়েবসাইটগুলোতে ভিজিট করছেন ,কোন কোন ডেটাগুলো আপনি আদান-প্রদান করছেন সেটাও বুঝতে পারবে না। আপনার দেশে যদি কোনো সাইট ব্লক করা থাকে,তাহলে আপনি ভিপিএন কানেক্ট করলে সেই সাইটকে অনায়াসেই ভিজিট করতে পারবেন। পাশাপাশি সেটা কেউ বুঝতেও পারবে না।
ভিপিএন কিভাবে কাজ করে
ভিপিএন কিভাবে কাজ করে 


           কোন কোন কাজগুলোতে ভিপিএন ব্যবহার করা হয়? 

আপনি ইন্টারনেট ব্যবহার করলে জেনে থাকবেন যে,এমন অনেক সাইট আছে যা আমাদের দেশ থেকে ভিজিট করা সম্ভব না।বিশেষ করে মুভি ডাউনলোডের সাইটগুলোতে এর প্রবণতা বেশী ।আপনি চাইলে এই সাইটগুলোতে ভিপিএন কানেক্ট করে খুব সহজেই ভিজিট করতে পারবেন।
এমন একটা সাইট আছে নাম ’স্পটিফাই’।যা আমাদের দেশ থেকে ঐ সাইটে ভিজিট করা সম্ভব না। কিন্তু আপনি ভিপিএন কানেক্ট করে এই সাইটটিতে প্রবেশ করুন ।দেখবেন আমাদের দেশ থেকেও ঐ সাইটে প্রবেশ করতে পারছেন আর ইচ্ছামত গানও শুনতে পারবেন।আপনি চাইলে নির্দিষ্ট কোনো দেশ যেমন,আমেরিকা ,কানাডা,অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশের সার্ভারও একটিভ করতে পারবেন ।

                        তথ্য সুরক্ষার নিরাপওার জন্য ব্যবহার 

ভিপিএন
ভিপিএনের কাজ কি?
আপনি কি এই বিষয়টা জানেন যে,আপনি যদি কোনো ওয়াই-ফাই ব্যবহার করেন ।তাহলে আপনার সার্ভারে কানেক্ট থাকা অন্য কোনো ব্যক্তি আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো হাতিয়ে নিতে পারবে?কি অবাক হচ্ছেন তাইতো। হুমম এটিও সম্ভব যদি সে ব্যক্তিটি এক্সপার্ট হয়ে থাকে তাহলে তার পক্ষে এটা বা হাতের কাজ।
সে ব্যক্তির ক্ষেএে তথ্য হাতিয়ে নেয়াটা তখনি কঠিন হয়ে পড়বে যখন আপনি ভিপিএন কানেক্ট করবেন।তখন সে বুঝতেই পারবে না আসলে আপনি কোন আইপি থেকে ইন্টারনেট ব্রাউজ করছেন।সে আপনার তথ্য হাতিয়ে নেয়ার জন্য যতোই আড়ি পেতে থাকুক না কেন।তার পক্ষে আর আপনার তথ্য হাতিয়ে নেয়া সম্ভব না।

             নিজের পরিচয় গোপন রাখতে ভিপিএনের ব্যবহার 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা তাদের নিজের পরিচয় গোপন রাখতে ভিপিএন  ব্যবহার করে থাকে।আপনি যদি আপনার লোকেশন হাইড করে কোথাও ব্রাউজ করতে চান ।তাহলে আমি বলবো আপনার জন্য ভিপিএন ব্যবহার করাই উপয্ক্তু।
আপনি হয়তবা জেনে থাকবেন যে ,চীনে অনেক সাইট সরকার কতৃক বন্ধ করা আছে।এমনকি ফেসবুকের মতো একটা জনপ্রিয় সাইটও চীন দেশে বন্ধ করা আছে।কিন্তু চীনের মানুষরাও কিন্তু ফেসবুক ব্যবহার কেের ।কিন্তু কিভাবে তারা ফেসবুক ব্যবহার করে? তারা মূলত ভিপিএনকে কাজে লাগিয়ে ফেসবুকের সুবিধা ভোগ করে ।যেমন টরেন্ট থেকে অনেক ফাইল নামানোর সময় তারা যদি আপনার আইপি সম্পর্কে টের পায়।তাহলে আপনার আইপির স্পিড অনেক স্লো করে দিতে পারে। সেক্ষেএে আপনি ভিপিএন ব্যবহার করতে পারেন।

                         ভিপিএন ব্যবহার কতটুকু নিরাপদ? 

ভার্চুয়াল জগতে নিরাপওার বিষয়টা আসলে সবার আগে হতাশা ছাড়া আর কিছুই পাওয়া যায় না।ভার্চুয়াল জগতে নিরাপওা নেই বললেই চলে ।কিন্তু আপনার যদি সত্যিই নিরাপওার প্রয়োজন হয় ,তাহলে আপনি ভিপিএনকেই একমাএ আস্থা হিসেবে রাখতে পারেন।আর যদি আপনি নিজেই ভিপিএনের সার্ভার তৈরি করতে পারেন ।তাহলে তো ভালোই হয়।
মুলত ভিপিএন ব্যবহারে আপনার তথ্য বেহাত কিংবা ঝুকির কোনো অবকাশ নেই। এমন অনেক কোম্পানির ভিপিএন আছে ,যারা আপনাকে বিনামূল্যে অনেক দেশে কানেক্ট করার জন্য সার্ভার দেয়ার সুযোগ করে দিবে। তবে বিনামূল্যে সার্ভারের কথা বলে অনেকেই আছে যারা আপনার কাছ থেকে টাকা নিয়ে ধোকা দিতে পারে। সে দিক থেকে সতর্ক থাকবেন।
ভিপিএন কি
ভিপিএনের ব্যবহার

                      কিভাবে ভিপিএনকে ব্যবহার করবেন?

ভিপিএনের সাহায্য আপনি আপনার কাঙ্কিত দেশের সার্ভারের সাথে সংযুক্ত হতে পারবেন। আপনি যদি খুব বেশি সতর্ক হয়ে থাকেন ,তাহলে আপনি চাইলে নিজেই একটি সার্ভার তৈরি করতে পারবেন।নতুবা কোনো সার্ভার প্রভাইডারের সাথে যোগাযোগ করে আপনি আপনার পারসোনাল একটি সার্ভার তৈরি করতে পারবেন।মূলত ভিপিএনের দুটি সিস্টেম আছে। একটি হলো ফ্রি সার্ভিস আর আরেকটি হলো পেইড সার্ভিস।তবে আমাদের মতো সাধারন আমজনতার জন্য ফ্রি সার্ভিসের ভিপিএন গুলো ব্যবহার করাই যথেস্ট।তবে যদি আপনি আপনার কোম্পানি বা ব্যবসার নিরাপওার জন্য ব্যবহার করতে চান । তাহলে আপনার জন্য পেইড ভিপিএন ব্যবহার করাই উচিত।আর পেইড ভিপিএনতে আপনি অনেকরকম সুবিধা পাবেন।এগুলোতে আপনার কোনো বিজ্ঞাপন সো করাবে না।আর অনেক সার্ভার পাবেন। পাশাপাশি পেইড ভিপিএনগুলোতে আপনার স্পিডও অনেক বেশি থাকবে।

প্রায় বেশিরভাগ ভিপিএন প্রোভাইডাররা তাদের ভার্চুয়াল সার্ভার ব্যবহার করার জন্য ডেক্সটপ,এন্ড্রয়েড বা আইওএসের জন্য এক্সটেনশনের ব্যবস্থা করে থাকে।আর এইসব ব্যবহার করাও খুব সহজ।তাদের অফিশিয়াল সাইটগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করলেই হবে।
আপনাদের সুবিধার্থে কয়েকটি মানসম্মত ভিপিএন প্রোভাইডার নাম বলছি। যেমন,স্যামসাং ম্যাক্স,এক্সপ্রেস ভিপিএন,টানেলবিয়ার,হটষ্পটশিল্ড ছাড়াও আরো অনেক ভিপিএন আছে।অথবা আপনি যদি গুগলে গিয়ে সার্চ করেন তাহলে অনেক ভিপিএন প্রভাইডারের সন্ধান পাবেন। সেগুলোর রেটিং দেখে আপনি সুবিধামতো যে কোনো একটা ব্যবহার করতে পারেন।

আশা করি পোস্টটি আপনাদের অনেক ভালো লেগেছে।কোনো কিছু জানাতে বা জানাতে চাইলে আমাদের মেইল করতে পারেন।আমরা যতো দ্রুত সম্ভব আপনাকে ফিডব্যাক দেয়ার চেস্টা করবো।আর পোস্ট সম্পর্কে
 কোনো মতামত থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।
ধন্যবাদ
New Post Older Post

Thanks For Read the Article